ফ্রিল্যান্সিং/আউটসোর্সিং ট্রেনিং সেন্টার যেভাবে ঠকায়

ফ্রিল্যান্সিং/আউটসোর্সিং ট্রেনিং সেন্টারগুলো যেভাবে প্রতারণা করে

প্রথম কথা হচ্ছে ফ্রিল্যান্সিং কিংবা আউটসোসিং কিভাবে করতে হয় সেটা শেখার জন্য কোন ট্রেনিং সেন্টারে যেতে হয় না। আপনি ফ্রিল্যান্সিং করতে হলে আপনাকে একটা স্কিল ক্যাটাগরিতে ভালো দক্ষতা অর্জন করতে হবে। ট্রোনিং সেন্টারে সেটার জন্যই যাবেন।

বাংলাদেশে ফ্রিল্যান্সিং এর জন্য সর্বাধিক জনপ্রিয় ক্যাটাগরি হচ্ছে গ্রাফিক ডিজাইন, ফটো এডিটিং, এস.ই.ও, ডিজিটাল মার্কেটিং, এডমিন সাপোর্ট, ওয়েব ডিজাইন, ওয়েব প্রোগ্রামিং, ইউ.আই/ইউ.এক্স ডিজাইন, সফটওয়ার প্রোগ্রামিং ইত্যাদি।

এসকল বিষয়ে দক্ষতা অর্জনের জন্য অপনি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের দ্বারস্থ হবেন। সে ক্ষেত্রে ফ্রিল্যান্সিং এবং আউটসোর্সিং এর ট্রেনিং সেন্টারগুলো যেভাবে প্রতারণা করে সে সকল বিষয়ে আপনাকে সচেতন হতে হবে। আসুন কমন কিছু বিষয়ে আলোচনা করা যাক, যাতে করে আপনি প্রতরণার হাত থেকে রক্ষা পান এবং ট্রেনিং সেন্টারের কোর্স থেকে বেস্ট আউটপুট পেতে পারেন।

”আয় করে কোর্স ফী পরিশোধ করুন” – সাবধান হোন!

গ্রাফিক ডিজাইন বা অন্য যে কোন বিষয়ে শিখে আয় করে কোর্স ফী পরিশোধ করুন। আগে শিখুন পরে কোর্স ফি প্রদান করুন। এমন লোভনীয় বিজ্ঞাপন বর্তমানে বেশ কিছু প্রতিষ্ঠানে অফার করছে।

ইতি মধ্যে বেশ কয়েকজন স্টুডেন্ট অভিযোগ করে কোর্স ফি পরিশোধের এই পদ্ধতিকে অনেকটা প্রতারণা বলে আখ্যায়িত করেছেন।

এর মূল কারণ হচ্ছে এই পদ্ধতিতে কোর্সফি অনেক বেশি হয় এবং কোর্স করার জন্য এস.এস.সি/এইছ.এস.সি সার্টিফিকেটেরে মূল কপি জমা দিতে হয়।

পরে পে করতে হবে ভেবে অনেকেই কোর্স সম্পর্কে ভালোভাবে বুঝে উঠার আগেই ভর্তি হয়ে যান। কিন্তু অনেকেই বুঝতে পারেন না যে এই কোর্সটি তার জন্য বেস্ট ফিট ছিল কিনা। ১-২ টা ক্লাস করার পর যখন বুঝতে পারেন তখন তার কিছুই করার থাকে না।

এছাড়া আপনি নিজেকে চ্যালেঞ্জ হিসাবেও এমন পদ্ধতিতে কোর্স নিতে পারেন। তবে আপনি এটা স্বীকার করেন বা না করেন একটা কোর্সের ২০-৫০ জনের মধ্যে ফলপ্রসূ ভাবে শিখতে পারা স্টুডেন্টের সংখ্যা নিতান্তই কম। এক দুই জনের সফলতার গল্প শুনে ভাবনা চিন্তা না করেই সিদ্ধান্ত নিবেন না।

কারণ জমা দেওয়া সার্টিফিকেট সম্পূর্ণ কোর্স ফি পরিশোধ করেই তুলতে হয়। আপনি উক্ত কোসের্ নিদির্ষ্ট ক্লাশ থেকে শিখে আয় করতে পারেন বা নাপারেন।

তাই আমার সাজেশন হচ্ছে আপনি যে স্কিল সেট নিয়ে নিজেকে দক্ষ করতে আগ্রহী সেটা নিয়ে আগে ভালোভাবে স্টাডি করেন। ইউটিউবে সকল স্কিল সেট নিয়ে অসংখ্য টিউটোরিয়াল রয়েছে। প্রাথমিক ধারণাটুকু আগে থেকে নিয়ে রাখতে পারেন।

আগে থেকে বেসিক জানার সুবিধা

প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানই একটা কোর্সের জন্য নির্দিষ্ট সংখ্যক ক্লাস করিয়ে থাকে। সেটা ৩৫ থেকে ৪৫ হয়ে থাকে। তবে সত্য কথা হচ্ছে আপনি মোটামুটি বেসিক না জানলে এই সীমিত সংখ্যক ক্লাস থেকে বেস্ট আউটপুট পাওয়া দূরহ হবে। সেক্ষেত্রে বেসিক জানা থাকলে আপনি ভালো সুবিধা পাবেন। যেখানে আপনার দুর্বলতা সে সকল বিষয়ে মেন্টরের সাথে আলোচনা করে সমাধান পেতে পারেন।

কোর্স মডিউল প্রতারনা

কোন কোর্স শুরু করার আগে কোর্স মডিউলে কি কি থাকবে জেনে নিন। আমার কাছে বেশ কিছু স্টুডেন্ট অভিযোগ করেছেন তারা গ্রাফিক ডিজাইনের কোর্সের ভর্তি হয়েছেন কিন্তু তাদের কোর্স শেষ হয়েছে টুল শিখানোর মধ্যদিয়ে। এডভান্স ডিজাইন শিখার জন্য আলাদা কোর্স নেওয়ার কথা বলা হয়!

ফ্রি সেমিনার প্রতারণা !!! অংশ গ্রহণ করেন কিন্তু ভেবে চিন্তে সিদ্ধান্ত নিবেন

বেশিরভাগ প্রতিষ্ঠানই নতুন স্টুডেন্ট সংগ্রহের জন্য ফ্রি সেমিনার আয়োজন করে থাকে। সেখানে বেশিরভাগ সময়ই একটা স্কিলের পজিটিভ দিক এবং সফলতার গল্প বলাহয়। যেগুলো নতুনদেরকে বেশ আগ্রহী করে তোলে। সুতরাং ফ্রি সেমিনারে অংশ গ্রহণ করে বুঝার চেষ্টা করেন সে সকল স্কিল নিয়ে। সফলতার গল্প এবং সম্ভাবনা দেখেই দ্রুত সিদ্ধান্ত নিবেন না। ফ্রি সেমিনার থেকে আপনি এবং প্রতিষ্ঠান উভয়েই যেন লাভবান হয় সে দিকে লক্ষ্য রাখবেন। তবে সেমিনারে অংশগ্রহণ করে কিছু ছাড় পেয়ে দ্রুত সিদ্ধান্ত নিবেন না।

ফ্রিল্যান্সিং শেখা অবস্থায় মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট খুলবেন না! সাবধান!

কিছু কিছু ট্রেনিং সেন্টার কয়েকটা ক্লাস করিয়েই মার্কেটপ্লেসে একাউন্ট খুলতে বলে। আমি আপনাকে সাবধান করছি। যদি ফ্রিল্যান্সার হতে চান আন্তর্জাতিক স্টান্ডার্ড কাজ শিখা ছাড়া কিংবা সেই মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে ভালোভাবে বুঝা ছাড়া একাউন্ট খুলবেন না। কারণ আপনি আপনার নামে একবারই একাউন্ট খুলতে পারবেন। প্রত্যেক মার্কেটপ্লেসে আইডি কার্ড দিয়ে ভেরিফাই করতে হয়। যদি কোন কারণে একাউন্ট ব্যান হয়, তাহলে সেই মার্কেটে আপনার ভবিষ্যৎ অনিশ্চিত।

প্রত্যেক আউটসোসিং ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস সম্পর্কে ইউটিউবে বাংলায় এবং ইংলিশে যথেষ্ট রিসোর্স রয়েছে। সুতরাং একাউন্ট ওপেন করার আগে ইউটিউবে ওই মার্কেটপ্লেস নিয়ে ভালোভাবে জানার চেষ্টা করুন।

কিভাবে ভালো আউটসোর্সিং/ফ্রিল্যান্সিং প্রশিক্ষণ প্রতিষ্ঠান চিনবেন?

ভালো প্রতিষ্ঠান চিনতে হলে আপনি যে প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হতে ইচ্ছুক তদের নিয়ে একটু অনলাইনে রিসার্চ করুন। একই স্কিল ক্যাটাগরিতে ওই প্রতিষ্ঠান থেকে কাজ শিখেছে এমন এক জনের পরামর্শ নিন। বিভিন্ন ফেসবুক গ্রুপ থেকে মতামত জানতে পারেন। তাদের অনলাইন রেপুটেশন (ফেসবুক এবং গুগল রিভিউ) দেখতে পারেন এবং কত বছর যাবত প্রশিক্ষণ দিয়ে আসছে সেটাও দেখতে পারেন।

এমন প্রতিষ্ঠানে ভর্তি হবেন না যারা আপনাকে বিক্রি করে দেওয়ার সম্ভাবনা আছে। হাসবেন না, এ কথা বলছি কারণ আমার অফিসে একদিন এক স্টুডেন্ট এসে বলল সে একটা ট্রেনিং সেন্টারে ভর্তি হয়েছিলো বাট তার কোর্স শেষ হওয়ার আগেই প্রতিষ্ঠানটি মার্কেট আউট এবং তাকে অন্য প্রতিষ্ঠানের কাছে পাঠানো হয়!

এত কিছুর পরেও আপনিই কিন্তু উইনার!

যে যত প্রতারণাই আপনার সাথে করুক না কেন, এগুলো সবই আপনার জন্য শিক্ষা! এই শিক্ষা গুলো আপনার জীবনে বেশ কাজে লাগবে। কয়েকটা ভুল সিদ্ধান্তের মধ্য দিয়েই আপনি ভালো কিছুর সন্ধান পাবেন। শিখতে হলে আপনাকে সেটার জন্য ব্যয় করতে হবে। দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য ব্যয় করাটাই হচ্ছে আপনার জীবনের সেরা ইনভেস্টমেন্ট। সেই বিনিয়োগ গুলোই হচ্ছে আপনার সময়, টাকা, কঠোর পরিশ্রম ইত্যাদি।

সবথেকে বড় কথা গুগলকে আপনা সঙ্গী বনিয়ে নিন! আপনি অনলাইনে ক্যারিয়ার গড়তে হলে পাশের বাড়ীর ভাই বা মামার থেকে শুনেই কোন ট্রেনিং সেন্টারে ভর্তি হবেন না। বরং অনলাইনে যে কোন তথ্য নিজে থেকে খুজে বের করা জানতে হবে। এটা সবথেকে বড় স্কিল। পাশা পাশি ইংলিশ কমিউনিকেশন দক্ষদা বাড়ানোর চেষ্টা করুন।

অন্যান্য যে পোস্টগুলো আপনার পড়া প্রয়োজন

  1. ফ্রিল্যান্সিং কে পেশা হিসাবে নিতেহলে যেই বিষয় গুলা অবশ্যই জানতে হবে
  2. গ্রাফিক ডিজাইন কিভাবে শিখবেন? কোথায় শিখবেন?
  3. জানুন কিভাবে ডিজাইনারদের ভবিষ্যত অসাম হয়!
  4. গ্রাফিক রিজার্ভ মার্কেটপ্লেস নন-এক্সক্লুসিভ অথরশিপ (বিস্তারিত)
  5. ফ্রিল্যান্সার দের কাজের জন্যে কেমন কম্পিউটার প্রয়োজন?
  6. আপনি যে কারনে ডিজাইনার হতে পারবেন না (Case Study)
  7. জানুন কিভাবে ডিজাইনারদের ভবিষ্যত অসাম হয়!
ফ্রিপিক অথর গাইডলাইন সাথে ১০০০ টাকার ফ্রি ওয়েব ডিজাইন কোর্স
বাংলায় গ্রাফিক ডিজাইন টেমপ্লেট বিক্র করে টাকা আয়

আর্টিকেলটি সম্পর্কে মতামত জানাতে নিচে কমেন্ট করুন। ধন্যবাদ

কেগ্রাফিক্স ডিজাইন কত প্রকার গ্রাফিক্স ডিজাইনার হতে হলে আয় কিভাবে গ্রাফিক্স ডিজাইন করতে হয়। গ্রাফিক্স ডিজাইন সফটওয়্যার প্রশ্ন ও উত্তর প্রশিক্ষণ বই ভিডিও টিউটোরিয়াল ফ্রিল্যান্সিং ডিজাইন কিভাবে করব। ব্রুশিয়ার কি গ্রাফিক্স ডিজাইন কিভাবে করে গ্রাফিক্স ডিজাইন পরীক্ষার প্রশ্ন গ্রা, গ্রাফিক্স ডিজাইন কোর্স ঢাকা অনলাইন আয় freelancing outsourcing graphic design training center in Dhaka Bangladesh

Share:

Facebook
Twitter
Pinterest
LinkedIn

7 thoughts on “ফ্রিল্যান্সিং/আউটসোর্সিং ট্রেনিং সেন্টার যেভাবে ঠকায়”

Leave a Comment

Your email address will not be published.

Get monthly free recourse

Subscribe To Our Monthly Update

No spam, notifications only about new products, updates.

ফিচার্ড প্রোডাক্ট সমূহ

ফিচার্ড আর্টিকেল

বিষয় ভিত্তিক আর্টিকেলস

On Key

Related Posts

Shopping Cart